ফেইসবুকের আইডি এবং পাসওয়ার্ড সংরক্ষণের কয়েকটি উপকারি টিপস

facebook-secuire

ইন্টারনেট যুগে যদি কাউকে জিজ্ঞাস করেন আপনার ফেইসবুকের আইডি আছে ? এবং এর উত্তরটা যে না হবে এটা ভাবাই একেবারে অনুচিত ।এখন প্রায় ছোট-বড়ো সকলেরই ফেইসবুকের অ্যাকাউন্ট আছে । ব্যাক্তিগত প্রয়োজন থেকে শুরু করে প্রফেশনাল সব কাজ এখন ফেসবুকের মাধ্যমে করা যাচ্ছে । যেমন- চ্যাটিং, ভয়েস কল, তথ্য আদান-প্রদান, ফটো শেয়ারিং ইত্যাদি । এক কথায় বলা যায়, দূরে থেকেও কাছে থাকার মতো ।

কিন্তু আপনার এই শখের ফেইসবুকের আইডিটির নিরাপরত্তা কিভাবে নিশ্চিত করবেন সেটাই এখন আলোচনার বিষয় । কারণ কারো না কারোর কমবেশি ২-১ টি আইডি ব্লক হয়ে গেছে । একটা আইডি বিভিন্ন ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে যেমন- হ্যাক হওয়া, পাসওয়ার্ড চুরি, ব্যান হওয়া ইত্যাদি । তাই কিভাবে আপনার ফেসবুকের আইডিকে অনাকাঙ্ক্ষিত বিপদ থেকে রক্ষা করবেন তারই কয়েকটা ঊপায় নীচে বর্ণিত হলো-

১) যেকোনো আইডির নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রথম পন্থা হলো মিশ্র ধরনের পাসওয়ার্ড ব্যাবহার করা । আমরা সবসময় যে কমন ভুলটা করি তা হলো নিজের ডিটেইলস দিয়ে পাসওয়ার্ড দেওয়া যা মোটেও নিরাপদ নয় । যেমন- নিজের নাম, পরিবারের কারো নাম, জম্ম তারিখ ,নিজের মোবাইল নাম্বার ইত্যাদি । পাসওয়ার্ড দেওয়ার সময় বড়ছোট অক্ষর মিক্সড করে, অক্ষরের সাথে যেকোনো সংখ্যা, স্পেস ইত্যাদি ব্যাবহার করতে হবে । তাছাড়া স্পেশাল ক্যারেক্টারের  যেমন- @, #, $, &, * ইত্যাদি অক্ষরের সাথে মিলিয়ে পাসওয়ার্ড দিলে পাসওয়ার্ড শক্তিশালী হবে । পাসওয়ার্ড অবশ্যই ৬-৮ ক্যারেক্টারের হতে হবে । আর পাসওয়ার্ড যাতে ভুলে না যান সেজন্য অন্য কোথাও সংরক্ষণ করে রাখুন ।

২) আপনার ব্যাক্তিগতো প্রোফাইলে এমন কোন তথ্য দিবেন না যাতে দুষ্টচক্রের হাতে আপনার তথ্য পাচার হয়ে যায়, আর সেই তথ্য হতে আপনার পাসওয়ার্ড হ্যাক হতে পারে । তাই নিরাপদ হলো সেইসব তথ্য কারো সাথে শেয়ার না করা ।

৩) কোন অপরিচিত ব্যাক্তিকে কখনোই রিকোয়েস্ট পাঠানো বা কারো রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করা উচিত নয় । কারণ এটা আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে । তাই কারো ছবিহীন প্রফাইল বা অপ্রয়জনীও ইনফো অ্যাড করা কোনভাবে উচিত নয় ।

৪) আপনার ফেইসবুক অ্যাকাউন্টে যদি কোন অনাকাঙ্ক্ষিত লিংক আসে সেটাতে ক্লিক করবেন না বা ভেবেচিন্তে ক্লিক করুন । কেননা অনেক সময় এটা পিশিং লিঙ্ক বা কুকি স্ক্রিপ্ট বা বিপদ জনক কিছু হতে পারে যা আপনার যেকোনো প্রাইভেসি ভাংতে পারে ।

৫) ইদানিং সবচেয়ে বেশি হ্যাক হয় ইমেইল এর মাধমে,তাই ইমেইল অ্যাড্রেসের কোন লিঙ্কে যদি ব্যাক্তিগত তথ্য চায় তাহলে ভুলেও সেইখানে কোন তথ্য দিবেন না । তাছাড়া ইমেইলের মাধ্যমেও ফেইসবুকের আইডি হ্যাক করা যায় । তাই আপনার ব্যাক্তিগত ইমেইল অ্যাড্রেসের পাসওয়ার্ডও স্ট্রং করে দিবেন । নাহলে বুজতেই পারছেন কি হতে পারে ।

৬) কিছুদিন পর পর আপনার ফেইসবুকের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নতুন পাসওয়ার্ড দিন ।

৭) কাউকে ভুলেও বা মজা করেও ফেইসবুকে থ্রেট দিবেন না বা গালিগালাজ করা থেকে বিরত থাকুন । এ ব্যাপারে যদি রিপোর্ট করে তাহলে আইডির আশা ছেড়ে দিতে হবে ।

সর্বোপরি খেয়াল রাখবেন www.facebook.com এর লিঙ্ক ছাড়া আর বাকি সব লিঙ্ক ফেইক যেমন- www.faceb00k.com  । একই দেখতে মনে হচ্ছে তাই না ! আমরা বাজার থেকে NOKIA ফোন মনে করে চাইনিজ NOKlA ফোন কিনতে পারি কিন্তু ভুলেও এরকম ফেইক সাইট বা ফিশিং সাইট এ ক্লিক করতে পারি না তাহলে বিপদ আছে ।

আশা করি এই কয়েকটা টিপস কাজে লাগিয়ে আপনি আপনার ফেইসবুক অ্যাকাউন্টকে শক্ত আবস্থানে নিয়ে যেতে পারবেন ।

Leave a Reply